‘তার সাথে আমার এত বছর সম্পর্ক ছিল, কিন্তু সে ধোঁকা দিয়ে চলে গেছে। এটা কি বেঈমানি নয়?’

‘তার সাথে আমার এত বছর সম্পর্ক ছিল, কিন্তু সে ধোঁকা দিয়ে চলে গেছে। এটা কি বেঈমানি নয়?’
.
উত্তর দিই,

‘এ সম্পর্কে ‘ঈমান’ এর স্থান কোথায় ছিল যে বেঈমানির কথা আসছে? আল্লাহ’র কোন কমিটমেন্ট তো ছিলনা যে তিনি এই সম্পর্ককে পরিণয় দান করবেন। শয়তানের ইনফ্লুয়েন্সে হয়ত আপনাদের পারস্পারিক কমিটমেন্ট ছিল একসাথে থাকার। এবং শয়তান মিথ্যেবাদী। সে শুরু করে দিয়ে কেটে পরে ‘
.
‘তাহলে তাকে কি ক্ষমা করে দিব? আল্লাহ তাকে শাস্তি দিবেনা?’
.

  • ‘ ক্ষমা করে দেওয়া উচিৎ। মানুষটা আপনাকে ধোঁকা দিয়ে চলে গেছে বলেই না আপনি একজন ধোঁকাবাজের সাথে আজীবন কাটানো থেকে বেঁচে গেলেন। তার প্রতি ঘৃনাও রেখে কি লাভ? ঘৃণাও তো এক ধরণের অনুভুতি। ওর উপর কোন অনুভুতি রাখারই দরকার নেই।’
    .
    ‘আর আল্লাহ তাকে যদি শাস্তি দেয়, একই দোষে তো আপনিও দোষী। দুজনই এত বছর আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করে এসেছেন।

যদি মানুষটা কেবলমাত্র আল্লাহ’র সন্তুষ্টির জন্য আপনাকে ছেড়ে দিয়ে এত বছরের জন্য তাওবা করে, কিংবা বাবা মা এর জন্য আপনাকে ছাড়ে (বাবা মা এর হালাল হক, আপনার সাথে তার হারাম সম্পর্কের হারাম হকের থেকে নিশ্চয় আগে) তাহলে আল্লাহ তাকে শাস্তি দিবেন না আর যদি মানুষটা অন্য নতুন কোন ছেলে/ মেয়ের হারাম প্রেমে পরে আপনাকে ধোঁকা দেয় তাহলে সে শাস্তি পাবে (ইন শা আল্লাহ), তবে আপনাকে ছেড়ে যাবার জন্য নয় বরং আপনার সাথে হারাম সম্পর্ক রাখার জন্য ও নতুন একটা হারাম সম্পর্কে জড়ানো জন্য ‘
.
‘তাহলে এতদিন কী করলাম ?’

  • ‘সময় নষ্ট করেছেন’

কপি: তন্ময় ভাই।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *